1. admin@banglatimesbd.com : admin :
২১ আগস্ট ২০০৪ সাল: কী ঘটেছিল সেদিন? - বাংলা টাইমস বিডি
সোমবার, ১২ এপ্রিল ২০২১, ১০:২৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
নারী নেত্রী আয়শা খানম আর নেই
প্রধান খবর
নতুন বছরে ইতিবাচক রাজনীতিতে ফিরে আসুন : বিএনপিকে ওবায়দুল কাদের হ‌বিগ‌ঞ্জে বাস দুর্ঘটনায় নিহত আট হাওর বিষয়ক মন্ত্রণালয় গঠনের দাবিতে মানববন্ধন সোশাল মিডিয়ায় ছবি দিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের শিকার জয়া আহসান যে খাবারগুলো দ্বিতীয়বার গরম করে ডেকে আনছেন নিজের বিপদ বাংলাদেশের সঙ্গে টি-টুয়েন্টি খেলবে না ওয়েস্ট ইন্ডিজ খোঁজ মিলেছে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার হোতাদের: অতিরিক্ত ডিআইজি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভেঙে ফেললো দুর্বৃত্তরা বিচ্ছেদের পর পাচ্ছেন প্রচুর বিয়ের প্রস্তাব, বিব্রত শবনম ফারিয়া করোনায় অভিনয়ে ফিরলেন নুসরাত ফারিয়া জানেন সকালে মধু খাওয়ার কত গুণ? শেখ মণির জন্মদিনে এতিমদের মাঝে খাবার বিতরণ করলেন বাবু জাতিসংঘে গাঁজার জয় শবনম ফারিয়ার বিবাহ বিচ্ছেদ বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় আলী যাকের মাতাল ‘বিথীকা’ ফুলও গন্ধহীন মিজানুর রহমান আজহারীর পোস্ট রিমুভ করে দিল ফেসবুক কর্তৃপক্ষ চলে গেলেন ম্যারাডোনা ডিসেম্বরে এইচএসসির ফলাফল ঘোষণা হবে দুই মাস পেছাবে আগামী বছরের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা: শিক্ষামন্ত্রী বাংলাদেশিদের ‘যৌন অতৃপ্ত’ বললেন প্রিয়তী নতুন ধর্মপ্রতিমন্ত্রী শপথ নেবেন সন্ধ্যায় প্রাথমিকের শিক্ষার্থীরা উপরের শ্রেণিতে একই ক্লাসরোল পাবে আওয়ামী লীগ অফিস ভাঙচুরের মামলায় ৫ আসামি কারাগারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা বিভাগীয় শহরে নেওয়ার সিদ্ধান্ত মাদক টেস্টে পজেটিভ রেজাল্ট এসেছে ৬৮ পুলিশ সদস্যের পদ্মা সেতুতে বসলো ৩৮ তম স্প্যান চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়: প্রাণে প্রাণ মেলাবোই রুহুল কবির রিজভীর হার্টে পরানো হলো রিং একজনের মিথ্যায় লকডাউনে ১৭ লাখ মানুষ আওয়ামী লীগ কখনো প্রতিশোধের রাজনীতি করে না: ওবায়দুল কাদের মাধ্যমিক শিক্ষায় বিলুপ্ত হচ্ছে বিভাগ ব্যবস্থা: শিক্ষামন্ত্রী করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে হাবিবুল বাশার ঢাকা দক্ষিণ আ’লীগের দপ্তর সম্পাদক হলেন রিয়াজ ঢাকা দক্ষিণ আ’লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক হলেন আবদুল মতিন ভূঁইয়া
add

২১ আগস্ট ২০০৪ সাল: কী ঘটেছিল সেদিন?

  • শুক্রবার, ২১ আগস্ট, ২০২০
  • ২৮১ বার পড়া হয়েছে
  • সাহাবুদ্দিন ফরাজী

২০০২ সালে ছাত্রলীগ থেকে বিদায় নেওয়ার পর আমরা কয়েকজন সাবেক ছাত্রনেতা বঙ্গবন্ধু কন্যা হাসিনা আপার সাথে থাকতাম । সেদিন ছিল আমাদের সন্ত্রাসবিরোধী মিছিল। মিছিল শেষে সমাবেশ । সে দিনের সেই ভয়াবহ দৃশ্যের কথা মনে পড়লে আজও শরীর শিহরিত হয়ে উঠে! সেই সময় আজকের মত এত বাহিনী ছিলনা আমরাই ছিলাম বড় শক্তি । তাই ঐ সমাবেশ যখন শুরু হয় তখন আমার যতটুকু মনে পড়ে নাছিম ভাই আমাদেরকে বলেছিল আপার গাড়ীর কাছে যাতে কোন অপরিচিত লোক আসতে না পারে। আমরাও সেভাবেই ছিলাম ! যথারীতি সমাবেশ চলছিল! সবশেষে আপার বক্তৃতার শেষ পর্যায়ে হঠাৎ পূর্বদিক থেকে প্রচণ্ড বোমার শব্দ। আমরা ধর ধর করে কিছু দূর এগিয়ে গেলাম কিন্তু একটার পর একটা বোমার শব্দ কানে আসতেই লাগল সাথে সাথে ওরে মারে বাবারে মরে গেলামরে,কান্নাকাটির শব্দ কানে আসতে লাগল! আমার পাশেই মোস্তাক আহম্মেদ সেন্টুর পেটে বোমা লেগে মাটিতে লুটিয়ে পড়ল । ধোঁয়ায় চারিদিক আচ্ছন্ন ।আমি দেখি লাশ আর লাশ ।একপর্যায়ে দৌড়ে জীবন বাচানোর চেষ্টা করি কিন্তু কয়েকগজ যেতে না যেতেই আমি লুটিয়ে পড়লাম মাটিতে আর দাঁড়াতে পারছিনা । আমার বাম পা গ্রেনেডের স্পিরিন্টারে ততক্ষণে ক্ষতবিক্ষত,রক্ত ঝড়ছে অকাতরে ভয় পেয়ে গেলাম ।মানুষের পায়ের নীচে পড়েই বাকি জীবনটা হয়ত চলে যাবে । হাসরের ময়দানের কথা বই পুস্তকে পড়েছি,কেউ কাউকে চিনবেনা, সকলেই ইয়া নফছি ইয়া নফসি করবে,মনে হল এযেন সেই পরিবেশ । সেই অবস্হায় কেবলি মনে পড়ছিল জননেত্রী শেখ হাসিনার কথা,জানিনা তার ভাগ্যে কি ঘটেছে,মনে পড়ছিল আমার একমাত্র ছেলেটার কথা ! ছেলেটার বয়স ছিল তখন এক বছর দশ মাস । ছেলেটাকে আদর করে আসছিলাম । মনে হচ্ছিল আমি আমার ছেলেটাকে আর আদর করতে পারবনা আর আমার ছেলেটাও বাবা বলে ডাকতে পারবেনা,পৃথিবীর আলোবাতাস হয়ত আর দেখা হবেনা । মনে হচ্ছিল গ্রেনেড আমাকে তাড়া করে বেড়াচ্ছে। অবশেষে কিছু লোক আমাকে এবং এনামুল হক শামীমকে ধরাধরি করে এলিফ্যান্ট রোড জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসল । আমাকে যখন একটি বেবিটেক্সিতে তুলছিল তখন মনে হচ্ছিল আমার বাম পাটা আমার শরীরের সাথে নেই ! সবাইর কাছে জানতে চাইলাম পাটা আছে কিনা সবাই বল্ল পা আছে ! আমার কোন বোধ ছিলনা ।অনেক কস্ট হচ্ছিল ।হাসপাতালে কোন ডাক্তার পেলামনা,ডাক্তারা আমাদের সাহায্যের জন্য এগিয়েও আসলনা। পা দিয়ে তখনও রক্ত ঝড়ছিল,ব্যাথার যন্ত্রনাও বেড়েছে কিন্তু কি করব তখন শামীম ভাই বল্ল, “ভাই বাচঁতে চাইলে শিকদার মেডিকেল চলেন।”আমার মনে আছে প্যান্ট কেটে বের করতে হয়েছিল। আমি আর এনামুল হক শামীম চলে আসলাম শিকদার মেডিকেলে এদিকে জেনারেল হাসপাতাল পুলিশ ঘেরাও করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ এর নেতা কর্মি যারা আমাদের দেখতে আসল তাদের বেধড়ক পেটালো ।হাসপাতালে এসে শুনতে পেলাম আইভি রহমান,মোস্তাক আহম্মেদ সেন্টুসহ আমাদের ২২জন নেতাকর্মি মৃত্যুবরণ করেছে আহত হয়েছে শত শত !কয়েকদিন হাসপাতালে থাকার পর মমতাময়ী নেত্রী শেখ হাসিনা আপা আমাদের কয়েকজন আবদুর রাজ্জাক,সুরেনজিত সেন গুপ্ত,ওবায়দুল কাদের,বাহাউদ্দিন নাছিম,এনামুল হক শামীম,সাহাবুদ্দিন ফরাজী,অজয়কর খোকন,নজরুল ইসলাম বাবু,নাছিমা খানম এদেরকে দিল্লি এ্যাপোলো হাসপাতালে পাঠালেন চিকিৎসার জন্য ! আজও বয়ে বেড়াচ্ছি স্পিরিন্টার ! যন্ত্রণা আজও ভোগ করছি । সেই ভয়াবহ দিনের কথা মনে পড়লে আজও আতকে উঠি,আজও চোখের কোনে পানি নেমে আসে ! আল্লাহর অশেষ রহমতে প্রানে বেঁচে যান আমাদের প্রানপ্রিয় নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ।জিয়ার প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ মদদে যেমন বঙ্গবন্ধুসহ পরিবারের সকলকে হত্যা করা হয়েছে তেমনি তারেক জিয়ার মদদে,তারেক জিয়ার ব্লু প্রিন্ট মোতাবেক শেখ হাসিনাকে হত্যা করে আওয়ামী লীগ কে যেমন নেতৃত্ব শূন্য করতে চেয়েছিল তেমনি গনতন্ত্রকে হত্যা করে দেশটাকে আবার পাকিস্তানীদের হাতে তুলে দিতে চেয়েছিল ! যারা মৃত্যুবরণ করেছে তাদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি ! হামলাকারী নরপিচাশদের ফাঁসির দাবি বাংলার প্রতিটি মানুষের…….২১শে আগষ্ট ২০০৪ বর্বরোচিত গ্রেনেট হামলা করা হয়েছিল দেশরত্ন,জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করে গনতন্ত্রকে চিরতরে কবর দিয়ে খালেদা জিয়া তথা বিএনপি,জামায়াত জোট সরকারের ক্ষমতা চিরদিনের জন্য পাকাপক্ত করার লক্ষে দেশটাকে পাকিস্তানী ধারায় পরিচালিত করার জন্য ।

লেখক: কেন্দ্রীয় সদস্য, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।

add

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

fourteen − 12 =

এই কেটাগরির আরো খবর

বাংলাদেশে কোরোনা

সর্বশেষ (গত ২৪ ঘন্টার রিপোর্ট)
আক্রান্ত
মৃত্যু
সুস্থ
পরীক্ষা
সর্বমোট

©banglatimes24 2020 All rights reserved, Design & Developed By:

Theme Customized By BreakingNews